একের পর এক আগুন,ভাঙচুরের পরও দর্শক বাংলার পুলিশ

সিএএ-র সময়ে মুর্শিদাবাদে যে অরাজকতা, হিংসার ছবি দেখেছিল গোটা বাংলা ,সেই দৃশ্যই আবার দেখলো বাংলা। ইসলামিক মৌলবাদীদের এক তরফা সন্ত্রাসের সামনে কার্যত ঠুটো জগন্নাথ হয়ে রইল মমতা ব্যানার্জির পুলিশ। আর একের পর এক সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করে টানা ১১ঘন্টা ন্যাশনাল হাইওয়ের মত ব্যস্ত রাস্তাকে অবরোধ করে অসংখ্য মানুষের অসুবিধের কারণ হয়ে দাঁড়ালো ওই মৌলবাদীরা। কলকাতার উপকন্ঠে দ্বিতীয় হাওড়া সেতু থেকে মাত্র ১২কিলোমিটার দূরে হাওড়া ডোমজুড়ের অঙ্কুরহাটির কাছে হওয়া অবরোধের জেরে একের পর এক ট্রেন দাঁড়িয়ে পড়ে লাইনে। দুরপাল্লার যাত্রীরা অসহনীয় গরমে কষ্ট ভোগ করেন। মারা যান এক চিকিৎসা করে ফেরা এক রোগীর ।

না তাতেও সেই অবরোধ ওঠায়নি হামলাবাজেরা। পরপর তিনদিন এই অবরোধের জেরে গোটা বাংলা দেখলো ভাঙচুর,আগুন লাগানোর মত ঘটনা । তাতেও একটিও গ্রেফতার করেনি পুলিশ । বরং সামলাতে না পারার জন্য বদলে দেওয়া হয়েছে হাওড়া গ্রামীণের উচ্চ পদাধিকারী পুলিশ আধিকারিককে। অসহায়ের মত পুলিশ ইট-পাটকেল হজম করেছে । কিন্তু নবান্নের ১৪তলার অনুমতি না থাকায় লাঠি ওঠাতে পারেনি। প্রতিবাদের আগুন ছড়িয়ে থানা অবধি এসেছে। ডোমজুড় থানা আক্রমণ, পুলিশের গাড়িতে আগুন লাগিয়েছে ওই হামলাকারীরা। তাতেও কিছুই করতে পারেনি মমতার পুলিশ । পুলিশের এই অসহায়তার কারণ একমাত্র তৃণমূলের মত শাসকের নির্লজ্জভাবে সংখ্যালঘু মুসলিম তোষণ। তা এই ঘটনা আরেকবার চোখে আঙুল দিয়ে দেখালো ।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

About Video Timeline Gallery Contact